Home বিশ্ব সংবাদ কুর্দি গেরিলা হটাতে একমত হয়েছে তুরস্ক-রাশিয়া

কুর্দি গেরিলা হটাতে একমত হয়েছে তুরস্ক-রাশিয়া

25
0
SHARE

যুদ্ধকবলিত সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে কুর্দি গেরিলাদের হটাতে একমত হয়েছে তুরস্ক-রাশিয়া। মঙ্গলবার দু’দেশের প্রেসিডেন্টের মধ্যে এ নিয়ে ১০ দফার একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

চুক্তি অনুসারে, সিরিয়ার সীমান্ত এলাকা থেকে কুর্দিদের সরাতে তুর্কি সেনাদের সঙ্গে একজোট হয়ে টহল দেবে রুশ সেনারা। চুক্তিটিকে উভয়দেশই ‘ঐতিহাসিক’ বলে আখ্যায়িত করেছে।

সমঝোতায় পুতিন ও এরদোগান সিরিয়ার ভৌগোলিক অখণ্ডতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। সেইসঙ্গে তারা বলেছেন, সিরিয়ায় যেকোনো ধরনের সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চলবে। সমঝোতা অনুযায়ী সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় মানবিজ ও তাল-রাফয়াত শহর থেকে কুর্দি গেরিলারা সরে যাবে।

রাশিয়া ও তুরস্কের মধ্যে এই চুক্তির ফলে তুরস্ক কুর্দিদের দখল নেয়া এলাকাগুলো পুনরায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেবে। আর রাশিয়া সিরিয়ার বাহিনীর সঙ্গে বাকি এলাকাগুলোয় নজরদারি রাখবে।

এ ছাড়া, আস্তানা আলোচনার ভিত্তিতে রাজনৈতিক উপায়ে সিরিয়া সংকট সমাধানের লক্ষ্যে প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতেও দুই নেতা সম্মত হয়েছেন।

মাত্র সাত দিন আগে সিরিয়ায় হামলা সহ্য করা হবে না বলে রাশিয়া তুরস্ককে হুশিয়ার করেছিল, রাশিয়ার মধ্যস্থতায় শর্তের বিনিময়ে কুর্দিদের সহায়তা করতেও সম্মত হয়েছিল সিরিয়ার সরকারি বাহিনী। কিন্তু এরমধ্যেই এরদোগানের কূটনৈতিক দক্ষতায় পরিস্থিতি নিজেদের অনুকুলে আনতে সক্ষম হয় তুরস্ক।

সীমান্ত থেকে কুর্দি যোদ্ধাদের সরিয়ে সেখানে একটি নিরাপদ অঞ্চল প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা করেছে তুরস্ক। যা সীমান্ত থেকে সিরিয়ার ভেতরে ৩০ কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত হবে।

গত সপ্তাহে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের সঙ্গে বৈঠকের পর তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান কুর্দিবিরোধী অভিযান পাঁচ দিনের জন্য বন্ধ রাখার ঘোষণা দেন।

অভিযান বন্ধের শর্তানুসারে তারা যুক্তরাষ্ট্রকে সিরিয়ার সীমান্ত অঞ্চল থেকে কুর্দি নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সকে (এসডিএফ) সরিয়ে নিতে বলেছিল।

মঙ্গলবার যুদ্ধবিরতি শেষে ওই নিরাপদ অঞ্চলে এসডিএফের কোনো উপস্থিতি থাকলে তুরস্ক ফের আক্রমণ শুরু করবে বলে সতর্ক করেছিলেন এরদোগান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here