1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : বরিশাল ব্যুরো প্রধান : বরিশাল ব্যুরো প্রধান
  3. [email protected] : cmlbru :
  4. [email protected] : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান
  5. [email protected] : ঢাকা ব্যুরো প্রধান : ঢাকা ব্যুরো প্রধান
  6. [email protected] : স্টাফ রিপোর্টারঃ : স্টাফ রিপোর্টারঃ
  7. [email protected] : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান
  8. [email protected] : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান
  9. [email protected] : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান
  10. [email protected] : আমজাদ হোসেন রাজশাহী ব্যুরো প্রধান : রাজশাহী ব্যুরো প্রধান
  11. [email protected] : রংপুর ব্যুরো প্রধান : রংপুর ব্যুরো প্রধান
  12. [email protected] : রুবেল আহমেদ : রুবেল আহমেদ
শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৫৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ

স্বাস্থ্যবিধি না মানায় করোনা সংক্রমণ বেড়েছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

রিপোর্টার
  • আপডেট : সোমবার, ২২ মার্চ, ২০২১

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণেই করোনার দৈনিক সংক্রমণ ২ থেকে ১০ শতাংশে উঠেছে। এ অবস্থায় জনগণের সহযোগিতা না পেলে সংক্রমণ কমানো সম্ভব নয়।

আজ সোমবার রাজধানীর তেজগাঁও সেন্ট্রাল মেডিকেল স্টোরস ডিপো-কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের এক আলোচনা সভায় ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, কোভিড মোকাবেলায় সফলতার স্বাক্ষর রেখেছে বাংলাদেশ। দেশে করোনা ভ্যাকসিন তৈরির সক্ষমতাও আছে। প্রধানমন্ত্রীর নিদের্শনার সেই লক্ষ্যেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

জাহিদ মালেক বলেন, ওষুধে যেভাবে আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছি, যেভবে আধুনিক ফ্যাসিলিটি তৈরি হয়েছে, আমাদের ওষুধ বিদেশেও রফতানি হচ্ছে। দেশের চাহিদার প্রায় ৯৯ শতাংশ ওষুধ দেশেই তৈরি হচ্ছে। আমরা ভ্যাকসিনও যাতে তৈরি করতে পারি সেই নির্দেশনা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন এবং আমরা সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি।

অসচেতনতার কারণেই করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েছে। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, পুরো দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় বিয়ে-শাদী হচ্ছে, ওয়াজ মাহফিল হচ্ছে, পিকনিক হচ্ছে- এখানে কোনো স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। ফলে সংক্রমণ এখন ২ থেকে ১০-এ উঠে গেছে।

আলোচনায় অংশ নিয়ে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব এমএ মান্নান বলেন, করোনাকালে স্বচ্ছতার সাথে কাজ করছে স্বাস্থ্য খাত। বর্তমান সিএমএসডি কেনাকাটায় ১৯০ কোটি টাকা সাশ্রয় করেছে।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব এমএ মান্নান বলেন, এতটা স্বচ্ছতা এবং এতটা আন্তরিকতার সাথে এই সিএমএসডি কোনোকালেই ছিল না।

অনুষ্ঠান শেষে অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, ৮ এপ্রিল থেকে ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেয়া শুরু হবে। দ্বিতীয় ডোজ পাওয়ার জন্য সবাই মোবাইল নম্বরে এসএমএস পেয়ে যাবেন। সুতরাং এটা নিয়ে কোনো দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হওয়ার কিছু নেই। যাদের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে তাদের জন্য দ্বিতীয় ডোজ নিশ্চিত করেই আমরা টিকার পরবর্তী কার্যক্রমকে প্রসারিত করেছি।

Facebook Comments
১ view

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ

© ২০২২ দৈনিক শিরোমনি