1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : বরিশাল ব্যুরো প্রধান : বরিশাল ব্যুরো প্রধান
  3. [email protected] : cmlbru :
  4. [email protected] : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান
  5. [email protected] : ঢাকা ব্যুরো প্রধান : ঢাকা ব্যুরো প্রধান
  6. [email protected] : স্টাফ রিপোর্টারঃ : স্টাফ রিপোর্টারঃ
  7. [email protected] : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান
  8. [email protected] : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান
  9. [email protected] : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান
  10. [email protected] : আমজাদ হোসেন রাজশাহী ব্যুরো প্রধান : রাজশাহী ব্যুরো প্রধান
  11. [email protected] : রংপুর ব্যুরো প্রধান : রংপুর ব্যুরো প্রধান
  12. [email protected] : রুবেল আহমেদ : রুবেল আহমেদ
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০২:৩০ পূর্বাহ্ন

মেসির বিদায়ের দিনে রোনালদোর জুভেন্তাসকে হারাল বার্সা

রিপোর্টার
  • আপডেট : সোমবার, ৯ আগস্ট, ২০২১

লিওনেল মেসির বার্সেলোনা থেকে বিদায়ের দিনে কাতালান ক্লাবটি হুয়ান গাম্পার ট্রফির ফাইনালে হারল ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর জুভেন্তাস। সোমবার (৯ আগস্ট) ইয়োহান ক্রুইফ স্টেডিয়ামে ৩-০ গোলে হেরেছে রোনালদোর দল, শিরোপা বার্সার শোকেসে।

এ নিয়ে সর্বশেষ নয়টি আসরে গাম্পার ট্রফির চ্যাম্পিয়ন হলো বার্সেলোনা। টানা এই শিরোপা জয়ের শুরুটা হয়েছিল ২০১৩ সালে।

লিওনেল মেসি বার্সা থেকে শেষ বিদায় না নিলে হয়তো ইতালিয়ান ক্লাবটি এবং চির প্রতিদ্বন্দ্বী রোনালদোর বিপক্ষে ঠিকই খেলতেন। আগে থেকেই এ নিয়ে ফুটবলপ্রেমীদের মধ্য উত্তেজনার অন্ত ছিল না। দু’জনার মধ্যে দীর্ঘদিনের প্রতিদ্বন্দ্বিতা চলছে বলেই কিনা! কিন্তু তা আর হলো কই!

জুভেন্তাস যখন বার্সায় এসেছে তখনই যে সংবাদ সম্মেলনে শেষ বিদায় বলতে ব্যস্ত মেসি। তাই রোনালদো একাই খেললেন, দেখা পেলেন না মেসির। রোনালদো-মেসির দু’জনার উপস্থিতে ম্যাচটি যেমন হতো তার তুলনায় এ লড়াইকে পানসে বলা যায় বৈকি।

মেসি বার্সা ছাড়া হলেও জুভেন্তাসের হয়ে শুরু থেকেই খেলেছেন পর্তুগিজ তারকা। তবুও ছায়া হয়েই রইলেন রোনালদো। দুই দলেই বড় বড় তারকারা একাদশে ছিলেন। বার্সার দিকে এই তালিকায় শুধু বাদ পড়েছেন সার্জিও আগুয়েরো ও মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগেন। এ ছাড়া মেম্ফিস ডিপাই, অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান, সার্জিও বুসকেটসরা সবাই ছিলেন।

ক্রুইফ স্টেডিয়ামের ফাইনালে খেলাও জমেছে সমানে সমান। বল দখল ও পাসের হিসাবে পিছিয়ে থাকলেও তুরিনের বুড়িরা বার্সার জাল বরাবর শট নিয়েছে প্রতিপক্ষের সমানসংখ্যক। বার্সার অন টার্গেট শট ও অফ টার্গেট শত দুটিই য়্যুভেন্তাসের সমান, ১৩ ও ৬।

ম্যাচের তৃতীয় মিনিটের সময় বার্সার নতুন স্ট্রাইকার ডিপাই এগিয়ে নেন দলকে। ইউসুফ দেমিরের পাস থেকে বল পেয়ে লক্ষ্যভেদ করেন ডাচ তারকা। পরের গোলে ডিপাই সহযোগিতা করেছেন সতীর্থ মার্টিন ব্রাথওয়েটকে। বার্সেলোনার শেষের গোলটি তরুণ রিকুই পুজের।

সব মিলিয়ে গাম্পার ট্রফিতে মোট ৪৪ বার চ্যাম্পিয়ন বার্সা। বার্সা ছাড়া একের অধিক চ্যাম্পিয়ন হওয়া একমাত্র ক্লাব এওফসি কোলন। শেষ নয়বারের মধ্য বার্সেলোনা ২০১৩ সালে হারিয়েছিল সান্তোসকে।

Facebook Comments
১ view

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২২ দৈনিক শিরোমনি