1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : বরিশাল ব্যুরো প্রধান : বরিশাল ব্যুরো প্রধান
  3. [email protected] : cmlbru :
  4. [email protected] : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান
  5. [email protected] : ঢাকা ব্যুরো প্রধান : ঢাকা ব্যুরো প্রধান
  6. [email protected] : স্টাফ রিপোর্টারঃ : স্টাফ রিপোর্টারঃ
  7. [email protected] : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান
  8. [email protected] : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান
  9. [email protected] : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান
  10. [email protected] : আমজাদ হোসেন রাজশাহী ব্যুরো প্রধান : রাজশাহী ব্যুরো প্রধান
  11. [email protected] : রংপুর ব্যুরো প্রধান : রংপুর ব্যুরো প্রধান
  12. [email protected] : রুবেল আহমেদ : রুবেল আহমেদ
বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:৫২ পূর্বাহ্ন

পদ্মা সেতুর স্প্যান বসানো শেষ হচ্ছে চলতি সপ্তাহেই

রিপোর্টার
  • আপডেট : সোমবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২০

১০ ডিসেম্বরের মধ্যেই পদ্মা সেতুর শেষ স্প্যান বসানো হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি জানান, স্প্যান বসানোর পরে পদ্মা সেতুর বাকি কাজ শেষ হতে সময় লাগবে ১০ মাসের মতো।

আজ সোমবার (৭ ডিসেম্বর) সচিবায়লয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ তথ্য জানান তিনি।
পদ্মা সেতুর বাকি কাজ শেষ হতে কত সময় লাগতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, ১০ মাস থেকে এক বছর লাগবে। লাস্ট স্প্যান আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে বসবে বলে আমরা আশাবাদী। সেতুতে ঢালাইয়ের কাজ, সড়কের জন্য প্রস্তুত করা, রেলের জন্য প্রস্তুত করার কাজ বাকি আছে। এটা ডাবল ডেকার সেতু। ইটস অ্যা ইউনিক ব্রিজ ইন দ্যা ওয়ার্ল্ড। এখানে রেলও চলবে, সড়কে যানবাহনও চলবে। কাজেই ওটাকে সেভাবেই তো তৈরি করতে হবে। ইট উইল টেক টাইম।

তিনি বলেন, আমি ইঞ্জিনিয়ার, কনসালট্যান্টদের সঙ্গে আলাপ করে দেখেছি সেতু বিভাগে। তারা বলেছেন, আগামী ১০ তারিখ যখন সব স্প্যান বসে যাবে, তখন যে কাজ থাকবে সেটা ১০ মাস থেকে এক বছরের মধ্যেই শেষ হবে। এরপরই উন্মুক্ত হয়ে যাবে পদ্মা সেতু।

২০২১ সালের বিজয় দিবসে এটি উদ্বোধন করা হবে কিনা জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী বলেন, কোনো দিবসে আমরা উদ্বোধন করবো না। প্রধানমন্ত্রী এটার বিরুদ্ধে। কোনো বিশেষ দিবসে এটা উদ্বোধন করা, এ জাতীয় প্রস্তাব তিনি কখনও গ্রহণ করেন না। বিশেষ দিবস তো বিশেষ দিবসই। সেতু উদ্বোধন অন্য যে কোনো দিন হতে পারে। বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবসে তো হওয়ার দরকার নেই।

গত শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর ১১ ও ১২ নম্বর পিয়ারের ওপর ৪০তম স্প্যান বসানো হয়েছে। এর ফলে ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ সেতুর ছয় কিলোমিটার অংশই দৃশ্যমান হয়েছে। এখন আর মাত্র একটি স্প্যান বসানো বাকি।

পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়েছিল ২০১৪ সালে। আর ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে বসানো হয়েছিল প্রথম স্প্যানটি। এরপর ধাপে ধাপে স্প্যান বসিয়ে এ পর্যন্ত ৩৯টি স্প্যান বসানো হয়েছে। সেতুর মোট পিলার ৪২টি এবং এতে স্প্যান বসবে ৪১টি।

পদ্মা সেতুতে রেলওয়ে স্ল্যাব ও রোডওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজও চলমান আছে। সেতুতে প্রয়োজন হবে দুই হাজার ২৯১৭টি রোডস্ল্যাব। এর মধ্যে নভেম্বর পর্যন্ত বসানো হয়েছে এক হাজার ২৩৯টির বেশি স্ল্যাব। রেলওয়ের জন্য প্রয়োজন হবে দুই হাজার ৯৫৯টি রেলস্ল্যাব। এ পর্যন্ত বসানো হয়েছে এক হাজার ৮৬০টির বেশি স্ল্যাব।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এই বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে পদ্মা সেতু। সেতুর ওপরের অংশে যানবাহন ও নিচ দিয়ে চলবে ট্রেন। মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড (এমবিইসি) ও নদী শাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন।

Facebook Comments
২ views

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২২ দৈনিক শিরোমনি