1. [email protected] : admin :
  2. tam[email protected] : বরিশাল ব্যুরো প্রধান : বরিশাল ব্যুরো প্রধান
  3. [email protected] : cmlbru :
  4. mintuchattagr[email protected] : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান
  5. [email protected] : ঢাকা ব্যুরো প্রধান : ঢাকা ব্যুরো প্রধান
  6. [email protected] : স্টাফ রিপোর্টারঃ : স্টাফ রিপোর্টারঃ
  7. kmsi[email protected] : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান
  8. [email protected] : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান
  9. md.alamgir.nuhala[email protected] : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান
  10. [email protected] : আমজাদ হোসেন রাজশাহী ব্যুরো প্রধান : রাজশাহী ব্যুরো প্রধান
  11. fajlur[email protected] : রংপুর ব্যুরো প্রধান : রংপুর ব্যুরো প্রধান
  12. [email protected] : রুবেল আহমেদ : রুবেল আহমেদ
রবিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩, ১১:১০ অপরাহ্ন

পটিয়ায় বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ

মোরশেদ আলম, পটিয়া চট্টগ্রাম প্রতিনিধি,দৈনিক শিরোমণিঃ
  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১

মোরশেদ আলম, পটিয়া চট্টগ্রাম প্রতিনিধি,দৈনিক শিরোমণিঃ
চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলায় জায়ড়া সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে পটিয়া উপজেলা পরিষোদের সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা ইদ্রিছ মিয়ার বিরুদ্ধে জায়গা দখলের একাধিক অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পরিবাররা। বুধবার (৯ই জুন) সকালে আব্দুল মালেক বাদী হয়ে চট্টগাম পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসক বরাবর দু’জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। এর আগে ৭ই এপ্রিল একই জায়গার জন্য মোরশী সূত্রে জায়গার মালিক জসীম উদ্দীন বাদী হয়ে পটিয়ায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চনহরা মৌজার জে, এল নং ১০৮, আরএস নং ২০৫৬, বিএস ৪৯৮৫/৪৯৮৭ দাগ জায়গা দীর্ঘদিন ধরে ভোগ দখল করে আসছেন। উপজেলার বিএনপির প্রভাবশালী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইদ্রিছ মিয়া ও হাফেজ আহম্মদ লোকজন নিয়ে আব্দুর মালেক ও মো. জসীম উদ্দিনকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে মাদ্রাসার নির্মাণের কথা বলে আরএস ২০৫৬ বিএস ৪৯৮৫/৪৯৮৭/৪৯৮৪/৪৯৮৬ দাগের জায়গা জোরপূর্বক দখলে নিয়ে সম্পূর্ণ গাছ কেচে মাদ্রাসা নির্মাণের কাজ শুরু করে দেন। এ ঘটন া পুলিশ কে জানানোর পর পুলিশ এসে কাজ বন্ধ রাখতে বলে। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী আব্দুল মালেক ও জসীম উদ্দীন বলেন, আমরা ঐ জায়গা গুলো তাদের ছেড়ে না দিলে বিবাদীরা আমাদের প্রাণনাশের হুমকি দেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মো. ইদ্রিছ মিয়া ও হাফেজ আহম্মদ অভিযোগ অস্বিকার করে এগুলো মাদ্রাসার জায়গা দাবি করে। এ বিষয়ে পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল করিম মজুমদার জানান, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ গত এপ্রিল মাসে পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছিলাম। যেহেতু এ জায়গা নিয়ে আদালতে মামলা বিবদমান সেহেতু কেউ সেখানে কাজ করতে পারবেনা।

Facebook Comments
৪৭ views

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২২ দৈনিক শিরোমনি