1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : বরিশাল ব্যুরো প্রধান : বরিশাল ব্যুরো প্রধান
  3. [email protected] : cmlbru :
  4. [email protected] : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান
  5. [email protected] : ঢাকা ব্যুরো প্রধান : ঢাকা ব্যুরো প্রধান
  6. [email protected] : স্টাফ রিপোর্টারঃ : স্টাফ রিপোর্টারঃ
  7. [email protected] : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান
  8. [email protected] : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান
  9. [email protected] : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান
  10. [email protected] : আমজাদ হোসেন রাজশাহী ব্যুরো প্রধান : রাজশাহী ব্যুরো প্রধান
  11. [email protected] : রংপুর ব্যুরো প্রধান : রংপুর ব্যুরো প্রধান
  12. [email protected] : রুবেল আহমেদ : রুবেল আহমেদ
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৯:১৬ অপরাহ্ন

নীরব প্রশাসন পটিয়ায় চলছে মাটি কাটার মহোৎসব

রিপোর্টার
  • আপডেট : সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১

মোরশেদ আলম, পটিয়া,দৈনিক শিরোমণিঃ মহামারী করোনা রোধে সারাদেশে সরকারের নির্দেশনা
মোতাবেক ১ সপ্তাহ লকডাউনের সুযোগে পটিয়ায় আবারও চলছে দিনে ও রাতের
আঁধারে চাষাবাদের জমি ও পাহাড় থেকে মাটি কাটার মহোৎসব। স্থানীয়দের
অভিযোগ, কয়েকটি সিন্ডিকেট প্রশাসনকে ম্যানেজ করে একটি অসাধু
মাটিকাটা চক্র প্রতিদিন পাহাড় ও ফসলি জমি থেকে জমির টপসয়েল (জমির উপরি
ভাগের উব্ররা অংশ) কেটে নিচ্ছে। এ মাটি কাটার ফলে পাহাড়ী বনভূমি যেমন
ধ্বংস হচ্ছে তেমনি কৃষি জমির পরিমাণ দিন দিন কমে যাচ্ছে। তাছাড়া
ইটভাটা, বসতভিটা ও পুকুর ভরাট কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে এসব মাটি। ভূমি আইনকে
বৃদ্ধাঙ্গুগুলি দেখিয়ে এক শ্রেণির দালাল ফসলি জমির টপ সয়েল কেটে উজাড়
করছে। এর ফলে এলাকার পরিবেশ বিপর্যয়ের পাশাপাশি কৃষি উৎপাদন ও ফসল
বৈচিত্রে মারাত্মক ঝুঁকিতে পড়বে। এ ব্যাপারে জাতীয় সংসদের হুইপ ও পটিয়ার
এমপি সামশুল হক চৌধুরী ধানি জমি থেকে টপ সয়েল কাটা বিষয়ে প্রশাসনকে
কঠোর নির্দেশ দিলে কিছু দিন বন্ধ থাকে। অনুসন্ধানে জানা গেছে, উপজেলা
কচুয়াই ও খরনা পাহাড়ী এলাকা, লালরখীল, শহীদ শাহ আলম স্কুলের পাশ্ব থেকে আব্দুর
রহিম, গোলাম কাদের, সান্টু কাঞ্চনগর চাবাগান (পটিয়া অংশ) থেকে মো.
জামাল, আবদুর রউপ, মো. রহিম, দেলোয়ার, ইমরান, মো. মোজাম্মেল সহ ৫০ জনের
একটি সিন্ডিকেট রাত দিন এস্কেভেটর দিয়ে মাটি কাটছে। এছাড়াও হাইদগাঁও
সাতগাউছিয়া মাজারের পূর্বে, হাইদগাঁও জিয়ারপাড়া, হাইদগাঁও দিঘির পাড়
কালীবাড়ি এলাকা, গুচ্ছগ্রাম, কেলিশহর মডেল টাউন, খিল্লাপাড়া, ছত্তারপেটুয়া,
নাগাটা বিল, মা ফাতেমা মাজারের পাশে, রতনপুর বড়–য়ার টেকের গোয়ালপাড়া,
মৌলভী হাট হয়রত আবদুল কাদের জিলানী (রা:) মাজারের পাশে, বরলিয়া, ধলঘাট
প্রবাহ স্টোরসহ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় প্রতিটি পয়ন্টে ২০/৩০ লোক ও
এস্কেভেটর দিয়ে কৃষি জমিতে মাটি কেটে ট্রাক, ড্রাম, মিনি পিকআপ ও
ট্রলি ভর্তি করে উজার করছে অসাধু মাটি ব্যবসায়ীরা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মাটি
কাটার গভীরতার পরিমাণ ১০ থেকে ১৫ ফুট পর্যন্ত ছাড়িয়ে যাচ্ছে। ফলে কোথাও
কোথাও অর্থনৈতিক ও অনৈতিক আগ্রাসনে পার্শ্ববর্তী মালিকের জমিও নষ্ট
হচ্ছে। এ বিষয়ে পটিয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী
কমিশনার(ভূমি) নিলুফা ইয়াছমিন বলেন, মাটি কাটার বিষয়ে শুনেছি। যে বা
যারা এই মাটি কাটার সাথে সম্পৃক্ত তাদের কে আইনের আওতায় হবে। পটিয়া
থানার ওসি রেজাউল করিম মজুমদার জানান, ্#৩৯;যেখানে মাটি কাটার খবর পাচ্ছি
সেখান থেকে গাড়ি আটক করছি। তবে কোথায় মাটি কাটছে জানা নাই
সঠিক তথ্য পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বর্তমানে লকডাউনের সুযোগের সেই
সিন্ডিকেট ফসলি জমি ও পাহাড় থেকে টপ সয়েল কেটে উজাড় করছে।

Facebook Comments
১০ views

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২২ দৈনিক শিরোমনি