1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : বরিশাল ব্যুরো প্রধান : বরিশাল ব্যুরো প্রধান
  3. [email protected] : cmlbru :
  4. [email protected] : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান
  5. [email protected] : ঢাকা ব্যুরো প্রধান : ঢাকা ব্যুরো প্রধান
  6. [email protected] : স্টাফ রিপোর্টারঃ : স্টাফ রিপোর্টারঃ
  7. [email protected] : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান
  8. [email protected] : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান
  9. [email protected] : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান
  10. [email protected] : আমজাদ হোসেন রাজশাহী ব্যুরো প্রধান : রাজশাহী ব্যুরো প্রধান
  11. [email protected] : রংপুর ব্যুরো প্রধান : রংপুর ব্যুরো প্রধান
  12. [email protected] : রুবেল আহমেদ : রুবেল আহমেদ
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০১:৩৪ অপরাহ্ন

নড়াইল-খুলনা সড়কের ফুলতলায় চালু হচ্ছে ফেরি

শিরোমণি ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট : মঙ্গলবার, ১৫ আগস্ট, ২০২৩
নড়াইল-খুলনা সড়কের ফুলতলায় চালু হচ্ছে ফেরি
Khulna-Fari-Ghat

দৈনিক শিরোমণি ডেস্ক রিপোর্ট :খুলনার ফুলতলা উপজেলার সিকিরহাট এলাকায় ভৈরব নদে ফেরি চালুর উদ্যোগ নিয়েছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ)। সিকিরহাটে ঘাট নির্মাণ ও ফেরি চালু হলে খুলনা থেকে নড়াইলের কালনা সেতু হয়ে সহজে যাওয়া যাবে ঢাকায়।বর্তমানে খুলনা থেকে কাটাখালি ও গোপালগঞ্জ দিয়ে ঢাকার যে দূরত্ব এই রুটে গেলে সেই তুলনায় দূরত্ব কমবে প্রায় ৩০ কিলোমিটার। এর ফলে সাশ্রয় হবে সময় ও অর্থ।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্র জানা গেছে, ফুলতলা-নড়াইল জেলা মহাসড়কের মান উন্নয়ন ও প্রশস্তকরণ প্রকল্পের কাজ শুরু হয় ২০১৮ সালের জুন মাসে। প্রকল্পের কাজ শেষ হয় গত জুন মাসে। এই প্রকল্পে ব্যয় হয় ১৭৮ কোটি টাকা। প্রকল্পের আওতায় যে ২৮ কিলোমিটার সড়ক প্রশস্ত করা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে নড়াইলের ২৬ কিলোমিটার ও ফুলতলার ২ কিলোমিটার সড়ক। ফুলতলা অংশের ২ কিলোমিটার সড়ক সংস্কার ও প্রশস্ত করতে ব্যয় হয়েছে ৬ কোটি টাকা।

ওই প্রকল্পের মেয়াদ ও কাজ শেষ হওয়ার পর ফুলতলার সিকিরহাট এলাকায় ফেরিঘাট স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে সংস্থাটি। শুধু ঘাট নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০ লাখ টাকা। সংস্কার খাত থেকে এই অর্থ বরাদ্দ করা হবে। প্রধান কার্যালয়ে একটি ফেরি এবং ২টি পন্টুন বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। যা শিগগিরই বরাদ্দ পাওয়া যাবে।

খুলনা থেকে কাটাখালি-গোপালগঞ্জ হয়ে ঢাকার দূরত্ব প্রায় ২২৩ কিলোমিটার। আর খুলনা থেকে ফুলতলার সিকিরহাট ঘাট হয়ে নড়াইলের কালনা সেতু দিয়ে ঢাকার দূরত্ব প্রায় ১৯৬ কিলোমিটার। ফলে সিকিরহাটে ফেরি চালু হলে খুলনা থেকে কাটাখালি-গোপালগঞ্জ হয়ে ঢাকা যেতে যে দূরত্ব ও সময় লাগে তার চেয়ে ২৭ থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরত্ব ও আধাঘণ্টা সময় কমবে।

তিনি জানান, খুলনার মানুষ দ্রুত সিকিরহাট ফেরিঘাট দিয়ে নড়াইল যেতে পারবে। যেহেতু নড়াইলে মধুমতি নদীর উপর কালনা সেতু চালু হয়েছে ফলে দ্রুত সময়ের মধ্যে খুলনা থেকে কালনা সেতু হয়ে ঢাকায় যাওয়া যাবে। খুলনা থেকে ফকিরহাট, মোল্লাহাট, গোপালগঞ্জ হয়ে অনেকটা পথ ঘুরে ঢাকায় যেতে হয়। সিকিরহাটে ফেরিঘাট চালু হলে খুলনা ও ফুলতলার মানুষ খুব সহজে কালনা সেতু হয়ে ঢাকা যেতে পারবে। এতে ৩০ কিলোমিটার দূরত্ব কমবে এবং সময় বাঁচবে প্রায় আধাঘণ্টা।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের এই উদ্যোগে খুশী খুলনার মানুষ। কাটাখালি-গোপালগঞ্জ হয়ে ঢাকায় যেতে সময় লাগে প্রায় ৪ ঘণ্টা। আর সিকিরহাটে ফেরি চালু হলে ওই রুটে ঢাকায় যেতে সময় লাগবে সাড়ে ৩ ঘণ্টা। এটা নিঃসন্দেহে খুলনার মানুষের জন্য ভালো খবর।

Facebook Comments
৯ views

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২২ দৈনিক শিরোমনি