1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : বরিশাল ব্যুরো প্রধান : বরিশাল ব্যুরো প্রধান
  3. [email protected] : cmlbru :
  4. [email protected] : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান
  5. [email protected] : ঢাকা ব্যুরো প্রধান : ঢাকা ব্যুরো প্রধান
  6. [email protected] : স্টাফ রিপোর্টারঃ : স্টাফ রিপোর্টারঃ
  7. [email protected] : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান
  8. [email protected] : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান
  9. [email protected] : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান
  10. [email protected] : আমজাদ হোসেন রাজশাহী ব্যুরো প্রধান : রাজশাহী ব্যুরো প্রধান
  11. [email protected] : রংপুর ব্যুরো প্রধান : রংপুর ব্যুরো প্রধান
  12. [email protected] : রুবেল আহমেদ : রুবেল আহমেদ
মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:০৯ অপরাহ্ন

তিব্বত মালভূমির উপর দিয়ে কেন বিমান চলে না

শিরোমণি ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট : শনিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২৩
তিব্বত গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের একটি আঞ্চলিক পৰ্যায়ের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল । যদিও তিব্বতের জনগণ তা মানতে রাজি নয় যে, তারা চীনের অংশ । আয়তনে ১২,০০,০০০ বর্গ-কিলোমিটার অঞ্চল নিয়ে তিব্বত স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল (চীনের জিংজিয়াং অঞ্চলের পর দ্বিতীয় সৰ্ববৃহৎ অঞ্চল) । পার্বত্য এবং দুর্গম পরিবেশের অঞ্চল হওয়ার জন্য চীনের সবচেয়ে কম ঘনবসতিপূর্ণ প্রশাসনিক অঞ্চল । উত্তর তিব্বতীয় ঢালু গড়ে ৪,৫৭২ মিটার (১৫,০০০ ফু) এর ও বেশি।নেপালের সাথে তিব্বত সীমান্তে মাউন্ট এভারেস্ট অবস্থিত ।হিমালয় পর্বতমালা ( উচ্চতা ২৯,০২৯ ফুট ) এশিয়ার একটি পর্বতমালা যা তিব্বতীয় মালভুমি থেকে ভারতীয় উপমহাদেশকে পৃথক করেছে। আফগানিস্তান, পাকিস্তান, ভারত, চীন, নেপাল ও ভূটান এশিয়ার এই ছয় দেশে বিস্তৃত হিমালয় পর্বতমালায় মাউন্ট এভারেস্ট, কেটু, কাঞ্চনজঙ্ঘা প্রভৃতি বিশ্বের উচ্চতম শৃঙ্গগুলি অবস্থান করছে।

তিব্বত হলো এমন একটি জায়গা যেখানে ৬০০০ মিটারেরও এর বেশি উঁচু উঁচু পাহাড় রয়েছে। এমন অনেক পাহাড় রয়েছে যেগুলোর উচ্চতা ৮০০০ মিটারের চাইতেও বেশি হয়ে থাকে । সুউচ্চ পাহাড়ের জন্য তিব্বত বিখ্যাত। আর সম্পূর্ণ তিব্বত এমন উঁচু উঁচু পাহাড়ে ঘেরা । যে পাহাড়গুলো বছরের প্রায় আট মাস-ই তুষার আবৃত থাকে।প্লেনের উচ্চতা 20,000 ফিটেরও বেশি উড়ে যাওয়ার ক্ষমতা রয়েছে । বেশিরভাগ বিমানে যাত্রীর কাছে 20 মিনিটের জন্য অক্সিজেন সরবরাহ করা হয় ( জরুরী প্রয়োজনে ব্যবহারের জন্য ) । বিমান চলাচলের নিয়ম অনুযায়ী, অক্সিজেন প্রয়োজন হয় এমন উচ্চতায় পৌঁছে গেলে ২০ মিনিটের পূর্বে ১০০০০ ফিট নেমে আসতে হবে । তিব্বতে পর্বতমালার বিস্তৃতি, ২৮,০০০-৩০,০০০ ফুট উচ্চতায় । এক্ষেত্রে বিমান চালকদের পাহাড় এর উপর দিয়ে যাওয়ার জন্য বিমানকে যে উচ্চতায় নিয়ে যেতে হয়,  সেখান থেকে অক্সিজেন পাওয়া যায়, ২০ মিনিটের মধ্যে বায়ুমন্ডলের এমন উচ্চতায় নেমে আসা কঠিন হয়ে পড়ে ।  বিমান পরিবহনকারীরা এই ধরণের হট্টগোল চায় না, তাই তারা তিব্বতের উপর দিয়ে উড়ে যাওয়া এড়িয়ে চলে

Facebook Comments
০ views

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২২ দৈনিক শিরোমনি