1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : বরিশাল ব্যুরো প্রধান : বরিশাল ব্যুরো প্রধান
  3. [email protected] : cmlbru :
  4. [email protected] : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান
  5. [email protected] : ঢাকা ব্যুরো প্রধান : ঢাকা ব্যুরো প্রধান
  6. [email protected] : স্টাফ রিপোর্টারঃ : স্টাফ রিপোর্টারঃ
  7. [email protected] : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান
  8. [email protected] : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান
  9. [email protected] : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান
  10. [email protected] : আমজাদ হোসেন রাজশাহী ব্যুরো প্রধান : রাজশাহী ব্যুরো প্রধান
  11. [email protected] : রংপুর ব্যুরো প্রধান : রংপুর ব্যুরো প্রধান
  12. [email protected] : রুবেল আহমেদ : রুবেল আহমেদ
বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৫:৩৮ পূর্বাহ্ন

টিকা সুরক্ষিত, ভালো আছি : পেন্স

রিপোর্টার
  • আপডেট : শনিবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০২০

ফাইজারের টিকার ডোজ নিলেন বিদায়ী ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ও তার স্ত্রী ক্যারেন। শুক্রবার হোয়াইট হাউসে টিকা প্রদান কর্মসূচি আয়োজন করা হয়েছিল। মাইক ও ক্যারেন পেন্সের সঙ্গেই টিকা নেন সার্জন জেনারেল জেরম অ্যাডামস। পুরো টিকা প্রয়োগ সরাসরি টিভিতে সম্প্রচার করা হয়। টিকার ইঞ্জেকশন নেওয়ার পরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে পেন্স বলেন, ‘টিকা সুরক্ষিত। তেমন ব্যথাও লাগেনি। ভালো আছি।’

করোনা টিকায় আশা জাগছে বলেও জানিয়েছেন পেন্স। বলেন, ‘আমাদের টিকা নিতে দেখে আমেরিকাবাসীর মনোবল বাড়বে। টিকা সুরক্ষিত ও নিরাপদ, এই বার্তাও সবার কাছে পৌঁছাবে।’

আমেরিকায় কোভিড টিকা বিতরণের দায়িত্বে রয়েছে দেশটিরন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিস (এনআইএআইডি)। কতজনকে টিকা দেওয়া হবে, টিকার বন্টন হবে কোন কোন রাজ্যে সবটাই ঠিক করছেন মার্কিন এপিডেমোলজিস্ট এ এনআইএআইডির ডিরেক্টর ডক্টর অ্যান্থনি ফাউচি। তারই নির্দেশে টিকা নেবেন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও।

৭৮ বছরের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, প্রতিষেধক যে নিরাপদ তা প্রমাণ হওয়া দরকার। দরকার পড়লে ক্যামেরার সামনেও প্রতিষেধক নিতে তিনি তৈরি। সে ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়া হবে সাংবাদমাধ্যমগুলোতে। আমজনতা যাতে বুঝতে পারেন টিকা নিরাপদ এবং জরুরি।

করোনা টিকার প্রচারে আগ্রহ দেখিয়েছেন অন্য তিন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন, জর্জ বুশ ও বারাক ওবামা। তিনজনই জানিয়েছেন, প্রকাশ্যে করোনার টিকা নিতে কোনও আপত্তি নেই তাদের। বরং সবার সামনে টিকা নিয়ে দেশবাসীকে উৎসাহিত করতে চান তারা। ভয় দূর করাই লক্ষ্য। তাহলেই করোনা মহামারি ঠেকানো সম্ভব হবে।

রবিবার থেকেই ফাইজারের টিকার বিতরণ শুরু হয়ে গেছে আমেরিকায়। ইতোমধ্যে ২ লাখের বেশি টিকার ভায়াল পৌঁছে গেছে হাসপাতালগুলোতে। এয়ার ট্রান্সপোর্টে মিশিগানে পৌঁছে গেছে টিকা।

মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন জানিয়েছে, একদিকে টিকার চালান চলবে, অন্যদিকে হাসপাতালগুলোতে টিকা দেওয়ার কাজ। এফডিএ কমিশনার স্টিফেন হান জানিয়েছেন, ডিসেম্বরের মধ্যেই আমেরিকায় প্রায় ২ কোটি মানুষকে টিকার ডোজ দেওয়া হবে। সবচেয়ে আগে বয়স্ক ও কো-মর্বিডিটির রোগীদের টিকা দেওয়া হবে। ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীরাও থাকবেন অগ্রাধিকারের তালিকায়।

বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের ঘনিষ্ঠদেরও টিকা দেওয়া হবে। তা ছাড়া হোয়াইট হাউজের কিছু স্টাফ থাকছেন টিকার অগ্রাধিকারের তালিকায়।

Facebook Comments
১ view

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২২ দৈনিক শিরোমনি