1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : বরিশাল ব্যুরো প্রধান : বরিশাল ব্যুরো প্রধান
  3. [email protected] : cmlbru :
  4. [email protected] : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান : চট্রগ্রাম ব্যুরো প্রধান
  5. [email protected] : ঢাকা ব্যুরো প্রধান : ঢাকা ব্যুরো প্রধান
  6. [email protected] : স্টাফ রিপোর্টারঃ : স্টাফ রিপোর্টারঃ
  7. [email protected] : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান : ফরিদপুর ব্যুরো প্রধান
  8. [email protected] : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান : সম্রাট শাহ খুলনা ব্যুরো প্রধান
  9. [email protected] : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান : ময়মনসিংহ ব্যুরো প্রধান
  10. [email protected] : আমজাদ হোসেন রাজশাহী ব্যুরো প্রধান : রাজশাহী ব্যুরো প্রধান
  11. [email protected] : রংপুর ব্যুরো প্রধান : রংপুর ব্যুরো প্রধান
  12. [email protected] : রুবেল আহমেদ : রুবেল আহমেদ
শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ

আশুলিয়ায় যুবতীর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার 

রিপোর্টার
  • আপডেট : সোমবার, ৫ এপ্রিল, ২০২১
রেদোয়ান হাসান ,সাভার,ঢাকা,দৈনিক শিরোমণিঃ
আশুলিয়ার নয়ারহাট এলাকার বংশী নদীতে থেকে বস্তাবন্দি অবস্থায় হ্যাপী আক্তার (৩০ ) নামে এক যুবতীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় মরেদহটি ময়না তদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এই ঘটনায় নিহত হ্যাপী আক্তারের প্রেমিক বাবু আকন্দকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।
রবিবার দুপুরে বংশী নদীর নয়ারহাট এলাকা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।
আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইকবাল হোসেন জানান, গত ৩১ মার্চ হ্যাপী আক্তার তার প্রেমিক বাবু আকন্দের সাথে দেখা করতে গিয়ে নিখোজ হন। পরে এই ঘটনায় হ্যাপী আক্তারের বাবা আশুলিয়া থানায় একটি নিখোজ ডায়েরী দায়ের করেন। সাধারণ ডায়েরী দায়েরের পরপরই পুলিশ তদন্তে নেমে সন্দান পায় বাবু আকন্দের। পরে পুলিশ বাবু আকন্দ তাদের কুরগাও এর বাসা থেকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে হ্যাপী আক্তারকে হত্যার কথা স্বীকার করে। পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বংশী নদীর নয়ারহাট এলাকা থেকে হ্যাপী আক্তারের বস্তাবন্দি মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।
মরদেহ উদ্ধারের পর মরদেহটি ময়না তদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয় জানিয়ে পুলিশের এই কর্মকর্তা আরো জানান, এই ঘটনায় বাবু আকন্দকে প্রথমে আটক করা হলেও নিহতের বাবার দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।
এছাড়া পুলিশের এই কর্মকর্তা আরো জানান, ঘটনার দিন হ্যাপী আক্তার বাবু আকন্দের সাথে দেখা করে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে তাকে হত্যা করে মরদেহ গুম করার উদ্দেশ্যে বস্তাবন্দি করে বংশী নদীতে ফেলে দেয়।
গ্রেপ্তার বাবু আকন্দ আশুলিয়ার কুরগাঁও এলাকার ইউসুফ আলীর ছেলে এবং নিহত হ্যাপি আক্তার একই এলাকাতে বাবা-মাসহ বসবাস করে স্থানীয় পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন।
Facebook Comments
১ view

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ

© ২০২২ দৈনিক শিরোমনি